Binance একাউন্ট খোলা এবং ভেরিফাই করার সঠিক নিয়ম


পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে বাইনান্স। বাইনান্স হচ্ছে এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যার মধ্যে আপনি ক্রিপ্টোকারেন্সি কেনাবেচা, এক্সচেঞ্জ, ট্রেডিং করতে পারবেন। আমাদের দেশের মধ্যে প্রায় সকল বড় বড় এক্সচেঞ্জ গুলো সাপোর্ট করে না কিন্তু বাইনান্স আমাদের দেশে সাপোর্ট করে। যদিও বাংলাদেশ ডলার কেনা বেচা করার অনুমোদন নাই কিন্তু বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সারদের ক্রিপ্টোকারেন্সি পেমেন্ট দিয়ে থাকে এমন ওয়েবসাইট আছে, ফ্রিল্যান্সাররা তাদের ক্রিপ্টোকারেন্সি পেমেন্ট নেওয়ার সুবিধার জন্য বাইনান্স একাউন্ট তৈরি করার পদ্ধতিটি এখানে দেওয়া হচ্ছে। আজকে জানতে পারবেন কিভাবে বাইনান্স একাউন্ট খুলতে হয় বিস্তারিত

বাইনান্স একাউন্ট খোলা নিয়ম

বাংলাদেশ থেকে বাইনান্স একাউন্ট খোলার জন্য আপনি নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন। বাইনান্স অ্যাকাউন্ট খোলার সময় অবশ্যই সব কয়টি ধাপ গুরুত্বসহকারে অনুসরণ করবেন।
  • বাইনান্স একাউন্ট খোলার জন্য প্রথমে চলে যান প্লে স্টোর এর মধ্যে এবং গিয়ে সার্চ করুন Binance (Install Binance App) লিখে এবং অ্যাপসটি ইনস্টল করুন। লক্ষ রাখবেন 10 মিলিয়ন এর অধিক মানুষ অ্যাপসটি ইন্সটল করেছে।
  • বাইনান্স অ্যাপসটি ইন্সটল করা হয়ে গেলে আপনার মোবাইল থেকে অ্যাপস টি ওপেন করুন।
  • অ্যাপটি ওপেন করলে দেখতে পারবেন রেজিস্টার অপশন আসবে আপনার সামনে। এখন চাইলে আপনি আপনার মোবাইল নম্বর অথবা আপনার ইমেইল দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশন করার সময় আপনার ইমেইল এবং পাসওয়ার্ড দেওয়া হলে দেখতে পারবেন সিকিউরিটি ভেরিফাই করার জন্য আপনার সামনে একটি আপনি মানুষ তা ভেরিফাই করার জন্য একটি সিকিউরিটি ভেরিফিকেশন আসবে এটি কমপ্লিট করুন।
  • সিকিউরিটি ভেরিফাই করা হয়ে গেলে রেজিস্ট্রেশন কনফার্ম করার জন্য আপনার ইমেইলের মধ্যে ভেরিফাই কোড চলে যাবে। ভেরিফাই কোড টি দিয়ে কনফার্ম করুন।
  • এখন আপনাকে কিছু প্রশ্ন করা হবে আপনি চাইলে এগুলো স্কিপ করতে পারেন অথবা এগুলোর উত্তর দিতে পারেন। লক্ষ্য রাখবেন আপনি আপনার কান্ট্রি বাংলাদেশ সিলেক্ট করবেন ভুল করা করলে একাউন্ট ভেরিফাই হবে না। আপনার কারেন্সি ইউএসডি সিলেক্ট করুন। 
এখন আপনার একটি বাইনান্স একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করা হয়ে গিয়েছে। কিছুক্ষণের মধ্যে আপনাকে মেইলের মাধ্যমে জানানো হবে আপনার ব্যালেন্স একাউন্ট ক্রিয়েট হয়ে গিয়েছে এই বিষয়টি। বর্তমানে আপনি যে একাউন্টে তৈরি করেছেন তা বাইনান্স আন ভেরিফাইড একাউন্ট। 

বাইনান্স একাউন্ট ভেরিফাই করার নিয়ম

বাইনান্স একাউন্ট ভেরিফাই করার জন্য আপনার কাছে ওয়েলকাম মেইল এর মধ্যে একটি লিংক দেওয়া হবে, সবাই অ্যাপস এর মধ্যে ঢুকে আপনার প্রোফাইলে ঢুকলে ভেরিফাই করার অপশন আসবে যেখানে লিখা থাকবে আনভেরিফাইড। আনভেরিফাইড লেখাটার মধ্যে ক্লিক করুন। আইডেন্টি ভেরিফাই করার ফরম খুলে যাবে। আইডেন্টি ভেরিফাই করার ফরম টি খুলে গেলে লক্ষ্য করুন এখানে তিনটি ভাবে ভেরিফাই করা যায় ১| বেসিক, ২| ইন্টারমিডিয়েট, ৩| অ্যাডভান্স। নিচের তিনটি নিয়মেই ভেরিফাই করার পদ্ধতি দেওয়া হল।

বাইনান্স একাউন্ট বেসিক ভেরিফাই করার নিয়ম

  • বেসিক ইনফরমেশন এর জায়গায় আপনি কান্ট্রি বাংলাদেশ সিলেক্ট করুন আপনার নামের প্রথম অংশ, দ্বিতীয় অংশ, মধ্যম অংশ দিয়ে আপনার জন্ম তারিখ দিয়ে দিন। 
  • বেসিক ভেরিফিকেশনের জায়গায় আপনি আপনার শহরের ঠিকানা, পোস্ট কোড, শহর দিয়ে কন্টিনিউ করুন।
এখন আপনার বেসিক ভেরিফিকেশন কমপ্লিট হয়ে গিয়েছে। বেসিক ভেরিফাইড কমপ্লিট করা হয়েছে এই বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য আপনার কাছে একটি মেইল চলে যাবে।

বাইনান্স একাউন্ট ইন্টারমিডিয়েট ভেরিফাই করার নিয়ম

  • ইন্টারমিডিয়েট ভেরিফিকেশন করার সময় প্রথমে বাংলাদেশ নির্বাচন করে নিন। 
  • এখন আপনি ভোটার আইডি কার্ড, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স যেটি দেখিয়ে অ্যাকাউন্ট ভেরিফাই করতে চান সেটি নির্বাচন করুন।
  • ভোটার আইডি কার্ড নির্বাচন করা হয়ে গেলে আইডি কার্ডের সামনের এবং পেছনের ছবি তুলে কন্টিনিউ করুন।
  • একাউন্ট ভেরিফাই করার জন্য এখন আপনাকে সেলফি তোলার কথা বলবে। আলোর স্বয়ংসম্পূর্ণ একটি জায়গায় গিয়ে একটি সেলফি তুলে ফেলুন।
  • এখন আপনার ফেইস ভেরিফাই করার জন্য একটি ফেরেম ওপেন হবে ফেরেম মধ্যে আপনার মুখ রেখে এপাশ-ওপাশ ঘোরানো।
সবকিছু ঠিকঠাক ভাবে হয়ে গেলে আপনার ব্যালেন্স একাউন্ট ইন্টারমিডিয়েট ভেরিফাই করার জন্য প্রসেসিংয়ে চলে যাবে। বাংলাদেশ থেকে ইন্টারমিডিয়েট ভেরিফাই করার জন্য সর্বোচ্চ এক থেকে দুই দিন সময় নিয়ে থাকে বাইনান্স কোম্পানি।

বাইনান্স একাউন্ট অ্যাডভান্স ভেরিফাই করার নিয়ম

  • বাইনান্স একাউন্ট অ্যাডভান্স ভেরিফাই করার জন্য প্রথমে আপনি আপনার দেশ বাংলাদেশ, পোস্ট কোড এবং শহর ঠিকানা দিয়ে কন্টিনিউ করুন।
  • এখন আপনি আপনার ব্যাংক স্টেটমেন্ট, গ্যাস বিল, বিদ্যুৎ বিল, পানি বিলের কাগজ এর ছবি তুলে কনফার্ম করুন।
সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ১০ দিনের মধ্যে রিভিউ করে আগে জানিয়ে দিবে বাইনান্স কোম্পানি আপনার অ্যাকাউন্ট ভেরিফাই হয়েছে কিনা।

ফ্রিল্যান্সারদের জন্য ইন্টারমিডিয়েট ভেরিফিকেশন করা একাউন্ট ব্যবহার করা বেস্ট। ইন্টারমিডিয়েট একাউন্ট এর মধ্যে যেই পরিমাণ লিমিট দেওয়া থাকে সেই পরিমাণ লিমিট আমাদের দেশের ফ্রিল্যান্সাররা শেষ করতে পারেন। বাইনান্স এর অ্যাডভান্স ফিচারগুলোর জন্য অ্যাডভান্স ভেরিফাই করার কোন প্রয়োজন নেই বেসিক ভেরিফি দিয়ে এডভান্স ফিউচার ব্যবহার করা যায়। অ্যাডভান্স ভেরিফাই দিয়ে শুধুমাত্র লিমিটের ট্রানজেকশন এর পরিমাণ বাড়ানো হয়। 

Previous Post Next Post